মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

১৪ আশ্বিন ১৪২৭

ই-পেপার

৩০ মার্চ ২০২০ : ১২ : ২৪

করোনায় ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি, ব্রিটিশ সরকার চালাচ্ছে ‘ভারতীয়রা’

প্রায় ২০০ বছর ভারতবর্ষ শাসন করেছে ইংরেজরা। এবার সেই ব্রিটিশদের শাসন করছেন দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূত। এমনটাই দাবি নেটিজেনদের। তারা বলছেন, নিজেদের ‘পাপের ফল’ ভোগ করছে তারা। তাইতো এখন চলতে হচ্ছে তথাকথিত ‘নেটিভ ইন্ডিয়ানদের’ অঙ্গুলিহেলনে।

ব্রিটেনে শাসন ব্যবস্থার মূল দুটি স্তর। প্রথমটি নিয়ন্ত্রণ করেন নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ও তার মন্ত্রিসভা। এটির ওপরই মুল দায়িত্বগুলো থাকে। দ্বিতীয় স্তরে আছে বাকিংহাম প্যালেস অর্থাৎ রাজপরিবারের সদস্যরা। এদের পদ সাম্মানিক। কিছু বিশেষ বিষয় ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নির্বাচিত সরকারই নেয়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে সরকারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুই পদ অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও তার এক মন্ত্রী আইসোলেশনে। অন্যদিকে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ও ভবিষ্যত রাজা প্রিন্স চার্লসও করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে। এই পরিস্থিতিতে শাসনভার কার্যত দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূতের কাঁধে।

একজন হলেন চ্যান্সেলর অব দ্য এক্সচেকার অর্থাৎ অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক। ৩৯ বছর বয়সী ঋষি ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিসের চেয়ারম্যান এন আর নারায়ণমূর্তির জামাতা। অপরজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল। দেশটির সরকারের যাবতীয় গুরুত্বপূর্ণ কাজের দায়িত্বে রয়েছেন এখন এই দুজন।

দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে ব্রিটিশ শাসন করতে দেখে ভারতীয়রা আপ্লুত। তাদের দাবি, কর্মফল ভোগ করছে ব্রিটেন। ব্রিটিশরা একসময় যে ভারতীয়দের শোষণ করত, এখন সেই ভারতীয়দের অধীনেই চলতে হচ্ছে তাদের।

কেউ বলছেন, ব্রিটিশরা এখন দেখ নিজেদের দেওয়া ওষুধ চেখে দেখতে কেমন লাগছে। নেটদুনিয়ায় ইংরেজদের নিয়ে রীতিমতো হাসাহাসি শুরু হয়েছে।


Your application license has expired!
Contact bdtask.com