বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

১৫ আশ্বিন ১৪২৭

ই-পেপার

২৯ মার্চ ২০২০ : ১১ : ০২

রাসেল আমাদের গেইল সেই আমাদের লারা : ব্রাভো

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের একজন বিধ্বংসী অল-রাউন্ডার আন্দ্রে রাসেলকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল-ব্রায়ান লারা বলে আখ্যায়িত করলেন দেশটির আরেক অল-রাউন্ডার ডোয়াইন ব্রাভো। বর্তমান বিশ্বে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় রাসেল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে রাসেলের ভূমিকার প্রশংসা করেন ব্রাভো। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ইনজুরিতে পরার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে প্রথম খেলতে নেমেছিলেন রাসেল। ।

রাসেল ঝলকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ম্যাচে মাত্র ১৪ বলে ৩৫ ও দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে আবারো ১৪ বলে ৪০ রান করেন রাসেল। প্রথম ম্যাচে ৪টি ও দ্বিতীয়টিতে ৬টি ছক্কা মারেন তিনি। সিরিজের সেরা খেলোয়াড়ও হন রাসেল।

ত্রিনিদাদের রেডিও আই ৯৫৫কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে রাসেলের প্রশংসা করেন ব্রাভো। তিনি বলেন, 'সে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। ক্রিস গেইলের ব্যপারেও যেমন বলতাম,সেরা ফর্মে থাকতো তখন তাকে আমি সেরাই বলতাম। সে আমাদের প্রতিনিধিত্ব করছে এজন্য আমরা খুশি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার বিপক্ষে বল করতে হয়নি। রাসেলের ক্ষেত্রে একইরকম। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে রাসেল এখন আমাদের গেইল-লারা। সে সুপারস্টার।'

গত জানুয়ারিতে নিজ মাঠে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে অবসর ভেঙ্গে মাঠে ফেরার পর শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দ্বিতীয়বারের মত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্রেসিংরুমে ফিরেন ব্রাভো। ২০১৬ সালের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজ খেলতে নামেন ব্রাভো। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হবার পরও, এই ফরম্যাটে ভালো করতে পারছে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কারণ দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়রা বিভিন্ন দেশের লিগ নিয়েই ব্যস্ত। গত নভেম্বরে ভারতের মাটিতে আফগানিস্তানের কাছে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারে ক্যারিবীয়রা। এরপর ভারতের কাছে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারে তারা।

চলমান বছরের জানুয়ারিতে, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। এরপর শ্রীলঙ্কার সফর শুরু করে ক্যারিবীয়রা। টি-টোয়েন্টি লড়াই জয়ের আগে ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ হারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা ধরে রাখার জন্য এখন থেকেই নিজেদের ছক কষছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রধান কোচ ফিল সিমন্স, অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড দলকে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করছেন।

বিশ্ব ক্রিকেটে আবারো প্রভাব বিস্তার করার জন্য নিজেদের লক্ষ্য নির্ধারন করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ব্রাভো বলেন, 'শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের আগে আমরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে গত কয়েক বছর ধরে ধারাবাহিক হতে পারিনি। ওয়ানডেতে ৩-০ ব্যবধানে হারে পর আমরা সকলে একসাথে বসেছিলাম। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছি। আমরা সিরিজ জিতে নতুনভাবে শুরু করতে চাই। আমরা বলেছিলাম, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আমরা আবারো প্রভাবশালী দল হিসেবে ফিরতে চাই।'

তিনি আরও বলেন, 'আমাদের দেশে বিশ্বের সেরা কিছু খেলোয়াড় তৈরি করেছি। যখন আমরা একই সাথে একই দলে থাকি, আমরা চেষ্টা করি ভালো খেলার। টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আবারো সেরা দলে রুপান্তর করতে চাই। যাতে সকলেই প্রশংসা করে। হাতে হাত রেখে আমরা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শুরু করি এবং বার্তাটি প্রেরণ করতে চেষ্টা করেছি, আমরা এখনো সব করতে পারি।'

ব্রাভো বলেন সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড় হওয়া সত্বেও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দলের ব্যাটিং অর্ডারের গভীরতার কারণে টেল এন্ডারে ব্যাটিং করতে হয়েছে তাকে। তিনি বলেন, 'কোচ যখন ব্যাটিং লাইন-আপ ঠিক করছিলেন, আমি নয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছিলাম। আমি বলেছিলাম, এই প্রথম টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আমি নয় নম্বরে ব্যাট করতে নামি।'

তিনি আরও বলেন, 'সমস্ত অহংকার বোধ একদিকে রেখে, দিন শেষে আমি খুশি। কারণ যারা বলকে জোড়ে বলকে আছড়ে মারতে পারে করতে পারে সেই রোভম্যান পাওয়াল-ফাবিয়ার অ্যালেন ও শিমরোন হেটমায়ারের মত প্রতিভাবান খেলোয়াড়ের সাথে খেলছি। আমি পিতার মত, মেন্টর, পরামর্শদাতা হতে পেরে খুশি। এসব প্রতিভাবান খেলোয়াড়রা বিশ্বকে তাদের প্রতিভার প্রদর্শন করতে পারে। আমরা সকলেই একই জায়গা আছি, ড্রেসিংরুমে কোন ইগো সমস্যা নেই নেই, শুধুমাত্র একটাই লক্ষ্য- জয় ও প্রভাব বিস্তার করা।'


Your application license has expired!
Contact bdtask.com